শীতকালে ত্বকের যত্ন!

#শীতকালে ত্বকের যত্ন: আসসালামু আলাইকুম পাঠকবৃন্দ। আশা করি আপনারা সবাই ভাল আছেন। আল্লাহর রহমতে ও আপনাদের দোয়ায় আমিও ভালো আছি। সামনে আমাদের শীতের সময় আসছে। শীতের সময় প্রাকৃতিক গত ভাবেই আমাদের শরীরের চামড়া শুষ্ক হয়ে পড়ে। শীতকালে ত্বকের যত্ন নেওয়ার উপায় বলব আজকে। শীতকালে চেহারা দেখতে অনেক খারাপ হয়ে যায়। শিশু বয়স্ক সবারই শীতের সময় চামড়া অনেক শুষ্ক হয়ে যায়। এর ফলে চামড়া ফেটে অনেক সময় রক্ত বার হয় এবং নানা রকম সমস্যার সৃষ্টি হয়।

শীতকালে ত্বকের যত্ন

চামড়া শুষ্ক হয়ে গেলে বয়স্কদের মতো চামড়া ভাঁজ পড়ে যায়। কিন্তু যদি ঠিকমত যত্ন করা হয় তাহলে এ সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে পারেন। তাই নিচে শীতকালের ত্বকের যত্ন নিয়ে বিশদ আলোচনা করা হলো। আপনারা যদি এগুলো ঠিক মতো মেনে চলেন তাহলে শুষ্ক চামড়া থেকে মুক্তি পাবেন।

১. প্রচুর পানি পান করা

শুষ্ক ত্বক থেকে বাঁচতে হলে প্রচুর পরিমাণ পানি পান করুন। প্রতিদিন পর্যাপ্ত পানি পান করলে শরীরের ভিতর আদ্র হয় এর ফলে চামড়ার ওপর এর কোনো চাপ পড়ে না।

তাই প্রতিদিন 8 থেকে 10 গ্লাস পানি খাওয়া একান্ত জরুরি। প্রয়োজনে ডাবের পানি ও ফলের রস নিয়মিত খান। তাহলে শীতকালে শুষ্ক ত্বক থেকে অনেকটা মুক্তি পাবেন।

২. অলিভ অয়েল ব্যবহার

অলিভ অয়েল এর যেকোনো সমস্যার জন্য খুব কার্যকারী হয়ে থাকে। অলিভ অয়েলে রয়েছে এসিড ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। যা শরীরের ত্বকের জন্য খুবই উপকার শুধু মুখের জন্য নয়।

প্রতিদিন গোসলের আগে মুখেও সারা শরীরের ত্বকে অলিভ অয়েল মেখে নিন তারপর কিছুক্ষণ পর হালকা গরম পানি দিয়ে গোসল করে নিন।

অলিভ অয়েলের সাথে মধু ও চিনি মিশিয়ে ক্রিম বানিয়ে নিন তারপর আস্তে আস্তে বেশি চাপ না দিয়ে সমস্ত শরীরে মেখে দিন তারপর কিছুক্ষণ অপেক্ষা করে গোসল সেরে ফেলুন শীতকালে এভাবে নিয়মিত করলে চামড়া শুষ্ক হবে না।

৩. অ্যালোভেরা ব্যবহার

অ্যালোভেরা ত্বকের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি জিনিস। অ্যালোভেরা যেখানে-সেখানে টবে লাগিয়ে রাখলে দূরত্ব বেড়ে যায়। অ্যালোভেরার একটি পাতা কেটে ভেতরের জেলটা বের করে নিন।

এরপর শুষ্ক ত্বকের ওপর লেপে দিন। এতে ত্বকের আদ্রতা বাড়বে শুষ্ক কমে যাবে এবং ত্বকের মৃত কোষ গুলো ঝরে যাবে ও ত্বকের যে কোনো ইনফেকশন দূর হয়ে যাবে।

ত্বকের যেকোনো জ্বালা ভাব ও চুলকানি কমে যাবে। তাই আপনারা নিয়মিত অ্যালোভেরা ব্যবহার করার চেষ্টা করুন।

৪. দুধ – দই খাওয়া

শুষ্ক ত্বকের জন্য দই বা দুধ খুবই উপকারী একটি জিনিস। দুধে রয়েছে ল্যাকটিক অ্যাসিড ত্বক-ঝাল মল করাতে অনেক সাহায্য করে। প্রতিদিন দুধ বা দই শুষ্ক ত্বকে লাগিয়ে পাঁচ মিনিট ধরে মালিশ করতে থাকুন।

এতে ত্বকের চুলকানি জ্বালা ভাব সব নিমেষে দূর হয়ে যাবে ত্বক উজ্জ্বল হয়ে উঠবে। কাঁচা দুধের সাথে মধু মিশিয়ে পুরো শরীরে লেপ্টে দিন তারপর গোসল করে নিন। এতে ত্বক অনেক মসৃণ উজ্জ্বল হয়ে থাকবে।

৫. নারিকেল তেল ব্যবহার

নারিকেল তেল ত্বক শুষ্ক থেকে অনেকটা বাঁচায়। শীতকালে মুখ ও ত্বক ত্বকের পাশাপাশি গোড়ালি হাটুর ও কনুই এর যত্ন নেওয়া উচিত। কারণ শীতকালে এগুলো যত্ন নেয়া না হলে কালো দাগ পড়ে যায়।

শীতকালে সাধারণত নারিকেল তেল জমে সাদা বরফের মতো হয়ে যায়। ওই সাদা প্রলেপ হাটুতে, গোড়ালিতে ও শরীরের পুরো ত্বকে লাগিয়ে রাখুন।

এভাবে প্রতিদিন করতে থাকলে আপনারা বুঝতে পারবেন ত্বকের কতটা উপকার হচ্ছে। তাই আপনারা নিয়মিত নারিকেল তেল ব্যবহার করার চেষ্টা করুন। এবং নারিকেলের পানি পান করুন।

৬. কমলা লেবুর রস ব্যবহার

শীতকালে কমলালেবুর রস খুবই উপকারী। কমলা লেবুতে থাকা ভিটামিন সি ত্বকের বলিরেখা ঠেকিয়ে রাখে। কমলালেবুর খোসা থেকে রস বার করে সেটা বেসনের সাথে মিশিয়ে ত্বকে প্রলেপ দিয়ে রাখুন এতে ত্বক অনেক উজ্জ্বল ফর্সা ও মসৃণ হয়। এটি রূপচর্চার জন্য খুবই প্রচলিত ।

তাই আপনারা কমলালেবুর খোসা ফেলে না দিয়ে শুকনো করে রেখে দিন পরবর্তীতে শুকনো খোসা গুড়ো করে ত্বকের শুষ্ক দূর করতে পারবেন।

৭. কলা ও মধু ব্যবহার

পাকা কলা ও মধু তোকে নরম উজ্জ্বল ও মসৃণ করতে অনেকটা সাহায্য করে। তাই পাকা কলা ও মধু ব্লেন্ডারের মাধ্যমে মিক্সট করে মুখে প্রলেপ দিয়ে রাখুন কিছুক্ষণ।

এতে মুখের কালো দাগ ও ময়লা সব দূর হয়ে যাবে। পাকা কলা ও মধু শুষ্ক ত্বকের জন্য খুবই উপকারী। এটি মুখে নিয়মিত ব্যবহার করুন তাহলে মুখে শীতকালে কোন শুষ্ক হবে না মসৃণ থাকবেন।

৮. চকলেট ব্যবহার

অনেক সময় চকলেট ত্বকের অনেক উপকার করে। চকলেটে উপস্থিত ও ক্যাফেইন ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে সাহায্য করে। তাছাড়াও চকলেটে ফ্যাট থাকে যা মশ্চারাইজার এর কাজ করে।

ডার্ক চকলেট ভালো করে গলিয়ে নিন হালকা গরম থাকতে তার সাথে মধু মিশিয়ে মুখের প্যাক বানিয়ে নিন। তারপর মুখে গলায় হাতে ভালো করে লাগিয়ে নিন খেয়াল রাখবেন যেন চোখের নিচের ঠোঁটের নিচে প্যাক না লেগে যায়।

তারপর কিছুক্ষণ রেখে গরম পানি দিয়ে ভালো করে ধুয়ে নিন এবং মশ্চারাইজার লাগিয়ে নিন। এভাবে নিয়মিত করলে মুখ ও ত্বকের শুষ্ক দূর হয়ে যাবে।

********* 

প্রিয় পাঠক, এই ছিল শীতকালে ত্বকের যত্ন নেওয়ার কিছু উপায়। এগুলো যদি নিয়মিত মেনে চলতে পারেন তাহলে আপনার ত্বকের শুষ্ক দূর হয়ে যাবে। আর চেষ্টা করবেন রোদে ত্বক কম লাগানো। বেশি ক্ষারযুক্ত করা সাবান কম ব্যবহার করাই ভালো। যেকোনো নরমাল সাবান ব্যবহার করবেন।

অতিরিক্ত গরম পানিতে বেশিক্ষণ গোসল করবেন না এতে ত্বকের শুষ্ক বাড়িয়ে দেয়। এভাবে ঠিকমতো যত্ন নিলে আপনার ত্বক অনেকদিন ঠিক থাকবে বয়স্ক তার ছাপ পড়বে না। অনেক বয়স হয়ে গেলেও আপনার ত্বক মসৃণ থাকবে সহজে ভাঁজ পড়বে না।

তাই আপনারা কষ্ট করে শীতকালে ত্বকের যত্ন নেওয়ার এই নিয়মগুলো কিছুদিন মেনে চলুন। আপনাদের সবার জন্য দোয়া রইল। আপনারাও আমার জন্য দোয়া করবেন যাতে আমি আপনাদের অনেক উপকারে আসতে পারি।

লেখায় কোনো ভুল ত্রুটি হলে ক্ষমা করে দেবেন। আবার দেখা হবে। আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহ ওয়া বারাকাতুহু।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here