ব্রণের দাগ দূর করার উপায়!

আসসালামু আলাইকুম, আজকে আপনাদের সাথে আমি ব্রণের দাগ ও গর্ত দূর করার খুবই কার্যকরি একটি ট্রিটমেন্ট নিয়ে কথা বলব যা মাত্র কয়েক দিনের মধ্যেই ব্রণের অসস্তিকর দাগ দূর করবে এবং কয়েক মাসের মধ্যে ব্রণের গর্ত দূর করে আপনাকে একটি সুন্দর নজর কাড়া ত্বক উপহার করবে।আজকের আলোচনার বিষয় হচ্ছে ব্রণের দাগ দূর করার উপায়

দেখুন ব্রণের কালো দাগ দূর করার পূর্বে বুঝতে হবে যে আসলে ব্রণের দাগ গুলো কি এবং কেন হয়। ব্রণের দাগ হওয়ার সবচেয়ে বড়ো কারণ হচ্ছে ডেমেজ স্কিন সেল যা ইমফ্লেমড হয়ে আছে অর্থাৎ সেখান কার কোষ গুলো রিফেয়ার বা রিজেনারেট হওয়া প্রয়োজন।

ব্রণ দূর করার জন্য আমরা কিছু হেলদি প্রসেস ফলো করব যা আমাদের স্কিন সেল কে খুব দ্রুত রিজেনারেট করবে। এবং স্কিন এর দাগ খুব দ্রুত চলে যাবে।

[এটা এই ভিডিয়ো থেকে নেওয়া হয়েছে।]

ব্রণের দাগ দূর করার উপায়

আমাদের মুখে ব্রণের দাগ দুই ধরনের হয়ে থাকে। একটি হচ্ছে অস্থায়ী লাল বা বাদামি বা কালো রঙের দাগ যা তিন চার মাস পর এমনিতেই চলে যায়। আর দিত্বীয়ত হচ্ছে আরও আক্রমণত্মক যা ত্বকের মধ্যে ক্ষত সৃষ্টি করে। এবং এটি মূলত পুরোনো সেল রিজেনারেশন থেকে হয়ে থাকে।

এখন আমরা ব্রণের দাগ বা ক্ষত দূর করার জন্য কিছু কার্যকরি উপায় সর্ম্পকে জেনে নেবো। যার থেকে অনেকে উপকার পাবেন।

ব্রণের দাগ ও গর্ত দূর করার ঔষধ

সর্বপ্রথম সাজেস্ট করব অ্যালোভেরা জেল ব্যবহার করার জন্য। কারণ অ্যালোভেরা জেল এ ব্রণের কালো দাগ ও ক্ষত দূর করার প্রয়োজনীয় থেরাপি রয়েছে।

অ্যালোভেরায় ভিটামিন-এ, ভিটামিন-E, ভিটামিন-সি এরকম ৭৫ টি শক্তিশালী ভিটামিন, মিনারেলস, জেম রয়েছে যা মুখ থেকে দাগ গুলো সরাতে দ্রুত সাহায্য করে। এটি দাগ ও ক্ষত দূর করতে খুবই ইফেক্টিভ কারণ এটি আমাদের স্কিন এর কোলাজেন সিনথেসিস বুস্ট করে আমাদের স্কিনকে রিজেনারেশন প্রসেসকে এক্সসেলেরেট করে এবং এটি আমাদের স্কিনকে সান ডেমেজ থেকে প্রটেক্ট করে।

যেটা খুবই গুরুন্তপূর্ণ ব্রণের দাগ দূর করার জন্য। এবং এছাড়াও এটি আমাদের স্কিনে প্রয়োজনীয় পুষ্টি যোগান দিয়ে আরও বেশি হেলদি ও youthful করে তুলে। খুব ভালো ব্র‍্যান্ড এর অ্যালোভেরা জেল করলে ভালো হয়। এটি স্নো বা ক্রিম এর পরির্বতে ব্যবহার করতে পারেন।

বেকিং পাউডার দিয়ে ব্রণের দাগ দূর করা

দ্বিতীয়ত সাজেস্ট করব বেকিং পাউডার। বেকিং পাউডার ব্যবহার করে ব্রণের দাগ দূর করা যেতে পারে।

শসা দিয়ে ব্রণের দাগ ও গর্ত দূর করা

তৃতীয়ত সাজেস্ট করব শশা ব্যবহার করার জন্য। কারণ শশাতে থাকা PH এর মান আমাদের স্কিনের PH এর মানের সমান এবং এটি আমাদের স্কিন সেলকে হাইড্রেট করে যা খুবই গুরুন্তপূর্ণ। শসা আমাদের স্কিন রিজেনারেশন প্রসেস কে এক্সসেলেরেট করে যা খুবই গুরুন্তপূর্ণ ব্রণের দাগ দূর করার জন্য। প্রথমে শশাকে মুখে ঘষে একটি প্রলেপ দেওয়ার পর যেখানে যেখানে ব্রণ এর দাগ আছে সেখানে শশাকে স্লাইস করে রেখে দিয়ে ৩০ মিনিট পর নরমাল পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলার পর মোসজোরাইস হিসেবে অ্যালোভেরা জেল ব্যবহার করবেন।

অ্যাপল সিডার ভিনেগার দিয়ে

চার নাম্বারে সাজেস্ট করব অ্যাপল সিডার ভিনেগার ব্যবহার করার জন্য। কারন এতে রয়েছে প্রচুর পরিমানে অ্যান্টি-অক্সিট যা স্বাস্থ্যের জন্য খুব উপকারী। এই অ্যাপল সিডার ভিনেগার আপনার স্কিনে তেলের প্রোডাকশন কমাতে সাহায্য করে এবং ডেইলি স্কিন সেল সরাতে সাহায্য করে।

আপনার স্কিন রিজারেশন প্রসেসকে ওক্সরেট করে খুবই গুরুন্তপূর্ণ মুখের দাগ দূর করার জন্য। আপনারা যতটুকু অ্যাপল সিডার ভিনেগার ঠিক ততটুকু পানির সাথে মিশিয়ে মুখে লাগিয়ে ৫ মিনিট রাখার পর নরমাল পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলবেন। এবং পরে মোসজোরাইস হিসেবে অ্যালোভেরা জেল ব্যবহার করবেন।

কিন্তু মনে রাখবেন প্রতিটি প্রসেস একদিনে যেন ব্যবহার করবেন না। যেদিন অ্যাপল সিডার ভিনেগার ব্যবহার করলে অন্য প্রসেস গুলো ব্যবহার করবেন না।

**********

প্রতিটা প্রসেস দুইদিন করে ব্যবহার করবেন এতে স্কিনের দাগ দূর হবে। কয়েকমাস দেওয়ার পর এই প্রসেস গুলো আপনার মুখের দাগ চলে যাবে। কিন্তু মুখের ক্ষত দূর করতে একটু সময় লাগবে। বছর কয়েক এই প্রসেস গুলো ব্যবহার করার পর আপনার মুখের দাগ ও ক্ষত চলে যাবে।

তাই প্রসেস গুলো প্রতিদিন continue ব্যবহার করতে হবে। কিন্তু প্রসেসগুলো ওভার ডু করা যাবে না, এতে স্কিন এর ক্ষতি হতে পারে। প্রসেসগুলো ব্যবহার করার পর আপনার স্কিন এর দাগ ও ক্ষত দূর হয়ে যাবে। এবং খুব ভালো ফলাফল পাবেন। আশাকরি, প্রসেসগুলো ব্যবহার করে ভালো উপকার পাবেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here